মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৭:৪২ অপরাহ্ন
নোটিশ

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা  জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা , উপজেলা, থানা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন

প্রকাশক সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮,

কিশোরগাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বরদের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ

Reporter Name / ৭৬ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০২১, ৯:৩৮ পূর্বাহ্ন

পলাশবাড়ি উপজেলার কিশোরগাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু ও মেম্বরদের বিরুদ্ধে ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎসহ বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রতিকার ও বিচার দাবি করেছেন ইউনিয়নবাসী। মঙ্গলবার গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান-মেম্বরদের অর্থ আত্মসাৎসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরে ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে তাদের বিচার দাবি করা হয়।

ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. রোস্তম আলী মাস্টার। লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলাম রিন্টু, সদস্য মমতাজ আলী, মো. রেজাউল, মো. মতলুবর রহমান, রফিকুল ইসলাম, মোজাম্মেল হক, নওশা মিয়া, রঞ্জনা রাণী মহন্ত, অহেন্দ্র নাথ সরকার এবং সদস্যা এমিলি খাতুন ও মেনেকা নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ইউনিয়নের সকল কাজে, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, ভিজিডি, ভিজিএফ এর তালিকা তৈরিতে অনিয়ম-দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা করে আসছে। এছাড়া ইউনিয়নে উন্নয়নমূলক কাজের নামে ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে গম, চাল ও টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উল্লেখ করা হয়, ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে টিআর কাজের সাড়ে ৩ লাখ টাকার ৩টি প্রকল্প দেখিয়ে কোন কাজ না করেই সমুদয় টাকা, ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে অতি দরিদ্রের কর্মসূচীর আওতায় ননওয়েজের ৯টি ভুয়া প্রকল্পের নামে ৩৫ লাখ ২২ হাজার টাকা, একই অর্থ বছরে কাবিখা/কাবিটার ৩টি প্রকল্পের ১১ লাখ ৫৪ হাজার ৭শ’ টাকা, ওই অর্থ বছরে ১৪টি ভুয়া প্রকল্পের নামে ১% এর ৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকা কোন প্রকার কাজ না করে সমুদয় টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। এছাড়াও পাকা রাস্তায় মাটি ভরাট দেখিয়ে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে কাবিখার ৩ লাখ ৬৯ হাজার টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যরা অতি দরিদ্রের কর্মসূচীর আওতায় কর্মসংস্থানের শ্রমিকদের নামের তালিকায় নিজস্ব লোকজনের নাম অন্তর্ভুক্ত করেও বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাৎ করে। এব্যাপারে অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিকার ও বিচারের দাবিতে দুর্নীতি দমন কমিশন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জিয়াউল হক জুয়েল, জসিম উদ্দিন, আছির উদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক, আমির হোসেন, নওশা মিয়া, আনছার আলী, রফিক মিয়া, হেলাল উদ্দিন, কুদ্দুস মিয়া, সোলেমান হক, রুহুল আমিন, আব্দুর রহিম, আব্দুস ছাত্তার, বেলাল হোসেন, মওদী হাসান প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: