fbpx
শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
হাততালি দেয়া যাবে তবে চিৎকার করা যাবে না! সাদুল্লাপুরে চাকুরি নিয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নববধূকে ধর্ষণ ১ কোটি দর্শক একদিনে দেখলেন নুসরাতের সেই ভিডিও সৌদি নারী একসঙ্গে ১০ সন্তানের জন্ম দিলেন শীতের ঠাণ্ডাও শরীরের জন্য উপকারী “রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক” পেলেন গাইবান্ধার পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা সাদুল্লাপুরে জোড়পৃর্বক জমি দখল নিতে মামলা অপপ্রচার ও হুমকী প্রদর্শন ক্যাপ্টেন পরিচয়ে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ায় আব্দুর রাজ্জাক নামে ভূয়া ক্যাপ্টেন আটক মুজিব জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে গাইবান্ধা থিয়েটারের নাটক পরিবেশিত

বর্ষার আগেই ব্রহ্মপুত্র নদে তীব্র ভাঙন

স্টাফ রিপোর্টার / ১৬৫ Time View
Update : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১, ৪:৩৩ অপরাহ্ন

বর্ষার আগেই গাইবান্ধা সদর উপজেলার কামারজানি ও মোল্লারচর ইউনিয়নে ব্রহ্মপুত্র নদে তীব্র ভাঙন শুরু হয়েছে। টানা বৃষ্টি-ঝড়ো বাতাসে সৃষ্ট ঢেউয়ে একের পর এক বিলীন হচ্ছে তীরবর্তী বসতবাড়ি-ফসলি জমি।

ভাঙনের শিকার গ্রামগুলো হলো- কামারজানি ইউনিয়নের কুন্দের পাড়া, মোল্লারচর ইউনিয়নের মোল্লারচর, সাপেরচর, হাতিমারা, বাতুলিয়া, চিতুলিয়ার ও দিগার গ্রাম।

ভাঙনকবলিত এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কামারজানি ইউনিয়নের কামারজানি বাজার-ফেরিঘাট থেকে শুরু করে কুন্দের পাড়াসহ বালাসীঘাট পর্যন্ত নদী তীরবর্তী এলাকায় ভাঙন শুরু হয়েছে।

বৃষ্টির সঙ্গে ঝড়ো বাতাসে সৃষ্ট বড় বড় ঢেউ তীরে আছড়ে পড়ছে। এতে নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে তীরবর্তী বসতবাড়ি। ভুক্তভোগীরা যতটা সম্ভব বাড়িঘর, গাছপালা সরিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিতে দিনরাত নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। অনেকে জীবন-সম্পদের ঝুঁকি নিয়ে নদীর পাড়েই বসবাস করছেন।

স্থানীয়রা জানান, বৃষ্টির সঙ্গে প্রচণ্ড ঝড়ো বাতাসের কারণে নদীর পাড় ভাঙতে শুরু করে। গত সাত থেকে আট দিনে ৬০ থেকে ৮০ ফুট তীর নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। বর্ষা শুরুর আগেই যেভাবে ভাঙন শুরু হয়েছে, তাতে বর্ষায় পরিস্থিতি কতটা ভয়াবহ হবে, তা ভাবতেই পারছেন না। আতঙ্কে নদী তীরবর্তী অনেকে পরিবার নিয়ে অন্যত্র চলে গেছেন।

মোল্লারচর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুল হাই মণ্ডল জানান, প্রতি বছর বর্ষা-বন্যায় এলাকার শত-শত মানুষ বসতভিটা হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছেন। এ বছর বর্ষার আগেই যেভাবে ভাঙন শুরু হয়েছে তাতে আমরা আতঙ্কিত। ভাঙনরোধে দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তিনি।

এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান জানান, নদী ভাঙন রোধে জিও ব্যাগ (বালু ভর্তি বিশেষ ব্যাগ) ফেলাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: