বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০৪:২৮ অপরাহ্ন
নোটিশ

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা  জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা , উপজেলা, থানা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন

প্রকাশক সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮,

গাইবান্ধা শহরে কয়েকটি স্পটে কেনাবেচা হচ্ছে বাংলা মদ

অনলাইন ডেস্ক / ১৬১ Time View
Update : রবিবার, ১৩ জুন, ২০২১, ২:৫৪ অপরাহ্ন

গাইবান্ধা শহরে কয়েকটি স্পটে কেনাবেচা হচ্ছে বাংলা মদ। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তৎপরতার অভাবে ক্রমশ তা বাড়ছে। ফলে আবারও মাদক ট্রাজেডির পুনরাবৃত্তির আশঙ্কা করছেন সচেতন মহল।

উল্লেখ্য, গাইবান্ধায় ১৯৯৮ এর মাদক ট্রাজেডিতে বিষাক্ত মদপানে শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলা দুই যুগেও শেষ হয়নি। মুলহোতা কেদার নাথের উত্তরসূরীরা এখন হাল ধরেছে মাদক ব্যবসার।

জানা গেছে, শহরের কাঠপট্টি, সার্কুলার রোড ও গোরস্থান মোড়, প্রধান ডাকঘর ও সাবেক বার লাইব্রেরী সংলগ্ন রেলস্টেশন সংলগ্ন সুইপার কলোনী ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির পেছনে চলে রমরমা বাংলা মদের ব্যবসা। সুইপারদের জন্য এই মদ সেবনের অনুমতি থাকলেও সুইপাররা তাদের বরাদ্দকৃত মদ ভাটিখানা থেকে অতিরিক্ত বাংলা মদ নিয়ে এসে তাদের বসতবাড়িসহ বিভিন্ন এলাকায় অন্য মাদকাসক্তদের কাছে অবৈধভাবে বিক্রি করে।

এছাড়াও শহরের বেশকিছু হোমিও দোকানে ওষুধের আড়ালে বিক্রি হয় রেক্টিফাইড স্পিরিট। মাঝে মধ্যেই র‌্যাব, পুলিশের অভিযানে মাদকের ছোটখাটো চালান ধরা পড়লেও অধরাই থেকে যায় প্রকৃত অবৈধ মদ ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে জনবল সঙ্কটে কার্যকর তেমন ভূমিকা রাখতে পারছে না মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: