শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০৭:৫৮ অপরাহ্ন
নোটিশ

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা  জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা , উপজেলা, থানা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন

প্রকাশক সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮,

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর টহল : গাইবান্ধায় কঠোর লকডাউনেও এনজিওর কিস্তি আদায়

স্টাফ রিপোর্টার / ১৩০ Time View
Update : সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১, ৭:৫৪ অপরাহ্ন

গাইবান্ধায় কঠোর লকডাউনের মধ্যেও অনেক এনজিও কিস্তি আদায় করছে। সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে প্রশাসনের নজবদারি এড়াতে এনজিওকর্মীরা সন্ধ্যার পর ঋণগ্রহিতাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কিস্তি আদায় করছে তারা। এতে লকডাউনের এই সময়টিতে অর্থনৈতিক বিপাকে পড়ছে স্বল্প আয়ের শ্রমজীবী মানুষ। এছাড়া কঠোর লকডাউনের ৫ম দিনে গাইবান্ধা শহরে সবধরনের যানবাহন ও হেঁটে চলা মানুষের সংখ্যা আগের তুলনায় আরও বেড়েছে।

শহরের বাইরে এলাকা গাইবান্ধা-নাকাইহাট সড়ক, গাইবান্ধা-বাদিয়াখালি-বোনারপাড়া সড়কে সিএনজি চালিত অটোরিক্সা ও ব্যাটারি চালিত অটোবাইক ও মটর সাইকেল যথারীতি চলাচল করছে। বিশেষ করে দ্রæত গতির মটর সাইকেলের চলাচল বেড়ে যাওয়ায় লকডাউনের এই সময়ে হেঁটে চলাচল করা লোকজন নানা সমস্যায় পড়ছে। এদিকে শহরতলি ও গ্রামাঞ্চলে মানুষ লকডাউন মানছে না। ফলে সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত দোকানপাট খোলা থাকছে।

বিশেষ করে গাইবান্ধা কলেজ রোডের প্রফেসর কলোনী, সুন্দরজান মোড়, তিনগাছের তল, গাইবান্ধা-সাঘাটা সড়কের ইন্দ্রারপাড়, বাংলা বাজার, বোর্ড বাজারসহ সদর উপজেলার চকমামরোজপুর, ভেড়ামারা ব্রিজ সংলগ্ন মোল্লা বাজার, পাঁচজুম্মা, স্কুলের বাজার এলাকাসহ হাট-ল²ীপুর, দারিয়াপুর বাজারগুলোতে দোকানপাট খোলা ছিল।
এদিকে লকডাউন কার্যকরে পুলিশের পাশাপাশি সেনাবাহিনী, বিজিবি সদস্যদের টহল এবং ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম অব্যাহত ছিল। লকডাউনের বিধিনিষেধ অমান্য করায় গত চারদিনে ভ্রাম্যমান আদালত ২৮৬টি মামলায় ১ লাখ ৯৩ হাজার ৫শ’ টাকা জরিমানা আদায় করে। জেলা ও সাতটি উপজেলায় লকডাউন সুষ্ঠুভাবে অব্যাহত ১৭টি ভ্রাম্যমান আদালত দায়িত্ব পালন করে বলে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে।

এছাড়া উন্মুক্ত স্থানে কাঁচাবাজার বসানোর কথা থাকলেও তা পালন করা হচ্ছে না। লকডাউনের প্রথম দিনের চেয়ে পঞ্চম দিনে লোকজনের উপস্থিতি বেশী লক্ষ্য করা গেছে। তাদের অধিকাংশের মুখেই মাস্ক ছিল না। এছাড়া শহরের পুরাতন বাজার, হকার্স মার্কেটে আগের মতই যথারীতি ভীড় করে লোকজনকে কেনাকাটা করতে দেখা গেছে। অপরদিকে উপজেলা সদরগুলোতে যথারীতি লকডাউন পালিত হয়েছে। তবে যানবাহন ও লোক চলাচল অনেক বেড়েছে। উপজেলা সদরগুলোতেও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর টহল ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম অব্যাহত ছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: