শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশ

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা  জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা , উপজেলা, থানা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন

প্রকাশক সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮,

গাইবান্ধায় গ্রাম পুলিশদের ঠিকাদার কর্তৃক নিম্নমানের বাইসাইকেল সরবরাহ

স্টাফ রিপোর্টার / ৯০ Time View
Update : শুক্রবার, ৬ আগস্ট, ২০২১, ৬:১৮ অপরাহ্ন

গাইবান্ধার গ্রাম পুলিশদের সরকার বরাদ্দকৃত বাই-সাইকেল টেন্ডারের সিডিউল মোতাবেক বাইসাকেল সরবরাহ না করে নিম্নমানের সাইকেল সরবরাহ করা করেছে ঠিকাদার। ফলে ওই নিম্নমানের সাইকেল নিতে অস্বীকৃতি জানায় গ্রাম পুলিশরা। এতে বাই-সাইকেল বিতরণ স্থগিত করেছে জেলা প্রশাসন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, গাইবান্ধা জেলার সাত উপজেলার ৮১ ইউনিয়ন পরিষদে কর্মরত গ্রাম পুলিশদের (দফাদার ও মহল্লাদার) ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে পোশাক ও সরঞ্জামাদি বিতরণের জন্য ১ কোটি ৪ লাখ ৯১ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দে গত ১৬ ফেব্রæয়ারি দরপত্র আহŸান করা হয়। এতে রংপুর, গাইবান্ধা, খুলনা ও ঢাকার ঠিকাদাররা অংশ নেয়। এরমধ্যে গাইবান্ধা শহরের ঠিকাদার নজরুল হকের নামে সিয়াম স্টোর ১ কোটি ৪ লাখ ৬৬ হাজার ১৬০ টাকা ও মেসার্স নজরুল হক ১ কোটি ৪ লাখ ৯১ হাজার টাকা এবং তার স্ত্রী মালেকা নজরুলের নামে ড্রেসি টেইলার্স ৫৭ লাখ টাকা দরে দরপত্র দাখিল করে।

অপরদিকে খুলনার নূর এন্টারপ্রাইজ ৬৬ লাখ ৯৬ হাজার ৭৯০ টাকা, এস.আর কর্পোরেশন ৯২ লাখ ৫২ হাজার ২০০ টাকা, আনন্দ ট্রেড কর্পোরেশন ৯৮ লাখ ৫৩ হাজার ৮০০ টাকা এবং রংপুরের দু’টি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দরপত্র দাখিল করে। পরে ঠিকাদার নজরুল হক মালামাল সরবরাহের কার্যাদেশ পান। সিডিউল অনুযায়ী পুরুষদের ৭৯০টি ও মহিলাদের ২০টি ইনডিয়ান-বিএসএ/ হিরো/ দুরন্ত বাংলাদেশী সাইকেল সরবরাহ করার কথা। কিন্তু ঠিকাদার নজরুল হক বিভিন্ন যন্ত্রাংশ জোড়া দিয়ে নিম্নমানের বাইসাইকেল তৈরি করে হিরো স্টিকার লাগিয়ে বিতরণের চেষ্টা করেন। ফলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সদর উপজেলার গ্রাম পুলিশদের মধ্যে বিতরণ করার সময় এসব নিম্নমানের বাইসাইকেল গ্রহণে গ্রাম পুলিশরা অস্বীকৃতি জানায়। পরে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বাই সাইকেল বিতরণ স্থগিত করা হয়।

তবে অভিযুক্ত ঠিকাদার নজরুল হক বলেন, যথানিয়মে দরপত্রে অংশ নিয়ে তিনি বাইসাইকেল সরবরাহের কার্যাদেশ পায়। বাইসাইকেলগুলো কোনোভাবেই নিম্নমানের নয়। এ ব্যাপারে গাইবান্ধা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মোছা. রোখছানা বেগম বলেন, বিতরণ করার জন্য নয়, তাদেরকে সাইকেলগুলো দেখানোর জন্য ডাকা হয়েছিল। আমাদের কাছে জমা দেয়া নমুনার সাথে মিল না থাকলে ঠিকাদারের কাছ থেকে সাইকেল সরবরাহ নেয়া হবে না। সে মোতাবেক নমুনার সাথে মিল না থাকায় ঠিকাদারের কাছ থেকে সাইকেল গ্রহণ না করে ফেরত দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, ঠিকাদার নজরুল হক নিজের নামে দুটি ও স্ত্রীর নামে একটি লাইসেন্স করে বিভিন্ন দপ্তরের টেন্ডার হাতিয়ে নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে নিম্নমানের সামগ্রী সরবরাহ করে আসছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: