বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
নোটিশ

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা  জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা , উপজেলা, থানা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন

প্রকাশক সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮,

ক্লোজআপ তারকা সাজু টাকার জন্য মাকে ছুরিকাঘাত করল

স্টাফ রিপোর্টার / ১৩৩ Time View
Update : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:৩০ অপরাহ্ন

জমিজমা ও টাকার জন্য মাকে ছুরিকাঘাতের অভিযোগ উঠেছে ক্লোজআপ তারকা সঙ্গীতশিল্পী সাজু আহমেদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার পান্ডুল ইউনিয়নের তেলিপাড়ায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত সাজুর মা রানীজান বেওয়াকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ছোরা দিয়ে আঘাত করায় তার বাম চোখের উপরে কপালে ৩ ইঞ্চি পরিমাণ গভীরভাবে কেটে গেছে। এ ঘটনা জানাজানি হলে সর্বত্র নিন্দার ঝড় উঠেছে।

এ ঘটনায় শনিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে সাজুর বড়বোন আঞ্জুমানআরা বেগম বাদী হয়ে সাজু আহমেদকে আসামি করে উলিপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। সাজুর এ ধরনের কর্মকাণ্ডের খবরে জেলাজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। হতাশ হয়েছেন তার ভক্তরা। হাসপাতাল থেকে মোবাইলে অনেকে সাক্ষাৎকার নিয়ে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিলে নানান মন্তব্য করতে দেখা যায় ভক্তদের।

এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২০০৩ সালে সাজুর বাবা সাবেক উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আজগার আলী মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুর পর ২ ছেলে ও ২ মেয়েকে নিয়ে পরিবার চালাচ্ছিলেন মা রানীজান বেওয়া। এর মধ্যে সাজুর বড়ভাই ঢাকায় গার্মেন্টসে কর্মরত রাজু আহমেদের মেয়ের বিয়ের জন্য তার মা দুই ভাইয়ের নামে দলিলকৃত একটি জমি বন্ধক রেখে ৫ লাখ টাকা নেন। এরপর থেকেই জমিজমার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে পরিবারের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিল।

দ্বন্দ্ব নিরসনে স্থানীয়দের মাধ্যমে চলতি বছরের ১৬ আগস্ট সালিশ বৈঠক বসে। সেখানে এক বছর পর জমিজমা ভাগবাটোয়ারার সিদ্ধান্ত হয়। এ সিদ্ধান্তে নাখোশ ছিল সাজু। ফলে প্রায়ই তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হতো। এমন পরিস্থিতিতে শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে মায়ের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয় সাজুর।

এই বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে রেগে গিয়ে ছোরা দিয়ে মাথায় আঘাত করতে উদ্যত হয় সে। এ সময় তার বড়বোন আঞ্জুমানআরা সাজুকে জাপটে ধরলে তার কপালে গিয়ে ছোরার আঘাত লাগে। এতে প্রায় ৩ ইঞ্চি গভীরভাবে কেটে যায়। পরে আহত সাজুর মাকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। তিনি হাসপাতালের ৬নং ওয়ার্ডের ১৪ নম্বর বেডে অবস্থান করছেন। তার শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে।

চিকিৎসাধীন সাজুর মা রানীজান বেওয়া (৬২) জানান, ২০০৮ সালে টিভি চ্যানেল এনটিভির গানের রিয়েলিটি শো ক্লোজআপ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় রানারআপ হয় সাজু। ওই সময় ছেলের জন্য জমি বিক্রি ও বন্ধক রেখে ১৬ লাখ টাকা খরচ করা হয়। এরপর সেই টাকা তার ফেরত দেওয়ার কথা থাকলেও সে তা না করে উল্টো আরও টাকা চায়। সম্প্রতি রাজনৈতিক দলে যোগ দেওয়ার পর সে পান্ডুল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছিল।

প্রচারণার ব্যয় নির্বাহ করতে সে জমি বিক্রির জন্য আমাকে চাপ দিচ্ছিল। এ নিয়ে আমাকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করত। আমাকে অপমান করত। নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিত। এখন সে আমার গায়ে হাত তুলে রক্তাক্ত করেছে। গত তিন দিনে আমাকে একনজর দেখার জন্যও আসেনি, নেয়নি কোনো খোঁজখবর। এতটাই পাষণ্ড সে। ছেলে হিসেবে এখন পরিচয় দিতে লজ্জা লাগে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ ব্যাপারে সঙ্গীতশিল্পী ও জেলা আওয়ামী লীগের নবগঠিত কমিটির সদস্য সাজু আহমেদ মায়ের ওপর হামলার কথা অস্বীকার করে এই প্রতিবেদককে জানান, সামান্য পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঘটনাটি ঘটেছে। আমি ভেতরের রুম থেকে বাইরের রুমে শিফট হতে চেয়েছিলাম। কারণ আমার অনেক বন্ধু-বান্ধব আসে। সেটা আমি মাকে জানালে মা পাশের গ্রামে থাকা আমার বড়বোন আঞ্জুমানআরাকে মোবাইলে ডেকে আনেন। বড়বোন আমাকে শিফট হতে বাধা দেন। এ নিয়ে তার সঙ্গে আমার ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে বড়বোন আমাকে মাটিতে বসার পিঁড়ি দিয়ে আঘাত করলে আমি ঠেকাতে গিয়ে সেটি মায়ের কপালে লাগে।

সাজুর বড়বোন আঞ্জুমানআরা বলেন, সাজু এর আগেও মায়ের সঙ্গে এবং আমাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছে। সম্প্রতি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হওয়ার পর সে পান্ডুল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছে। এজন্য জমিজমা ভাগবাটোয়ারা করার জন্য মাকে চাপ দিচ্ছিল। মা জমি বিক্রি করতে রাজি না হওয়ায় সে নির্মমভাবে মাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ছোরা দিয়ে হামলা করেছে। এজন্য তার বিরুদ্ধে বাদী হয়ে উলিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. পুলক কুমার সরকার জানান, রোগীর বাম চোখের উপর কপালে কাটা দাগে ৭টি সেলাই দিতে হয়েছে। শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। এখন অবস্থা উন্নতির দিকে।

এ ব্যাপারে উলিপুর থানার ওসি ইমতিয়াজ কবির জানান, সঙ্গীতশিল্পী সাজু তার মাকে আঘাত করেছে মর্মে তার বড়বোন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এজন্য এসআই আনিসুর রহমানকে তদন্তের দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। তদন্তসাপেক্ষে প্রকৃত তথ্য উদঘাটন করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: