fbpx
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
গাইবান্ধায় শীতজনিত রোগী বাড়ছে গোবিন্দগঞ্জে অক্টোবরের ভালো চাল আত্মসাত করে জানুয়ারিতে দিলেন পঁচা চাল বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধূকে ৮ বছর ধর্ষণ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ১৩ তম সাদুল্যাপুরের নলডাঙ্গার চেয়ারম্যান প্রার্থীকে আওয়ামীলীগ থেকে বহিস্কার গাইবান্ধায় অসহায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ সংসদে বিল: সব জেলা পরিষদে সমান সদস্য থাকছে না, বসানো যাবে প্রশাসক গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে ৫ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের সরকারি বই সাড়ে ২৭ হাজার টাকায় বিক্রি পঞ্চমবার বিয়ের পিঁড়িতে চিত্রনায়িকা পরীমনি মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে বাম জোটের বিক্ষোভ

গাইবান্ধায় সাড়ে ৬শ পুজামণ্ডপে চলছে দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি

স্টাফ রিপোর্টার / ১১১ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:৪৮ অপরাহ্ন

গাইবান্ধার ৭ টি উপজেলায় সাড়ে ৬শ পুজামণ্ডপে শারদীয়া দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি চলছে। সেই সাথে পুজামণ্ডপ গুলোতে প্রতিমা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন প্রতিমা শিল্পীরা ।

৬ অক্টোবর মহালয়ার মধ্যদিয়ে আগামী ১১ অক্টোবর ষষ্টি পুজা শুরু হবে । গাইবান্ধা সদর উপজেলায় ১০৩টি, সাদুল্যাপুরে ১১৭টি, ফুলছড়িতে ১৯টি, সাঘাটায় ৬১টি, পলাশবাড়িতে ৬৪ টি, সুন্দরগঞ্জে ১৪৫টি ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ১২৯টি মন্দির ও মন্ডপে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে এ স্বাস্থ্য বিধি মেনে শারদীয়া দুর্গোৎসবের আয়োজন চলছে মন্ডপ গুলোতে।

সাঘাটা, ফুলছড়ি, গোবিন্দগঞ্জ, সাদুল্লাপুর, সুন্দরগঞ্জ, পলাশবাড়ি ও গাইবান্ধা সদরসহ সাত উপজেলার বিভিন্নস্থানে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। কেউ তৈরি করছেন কাদা, কেউ কাটছেন বাঁশ, কেউ আবার মাটি দিয়ে প্রলেপ দিচ্ছেন প্রতিমার গায়ে। প্রতিমা তৈরিতে গাইবান্ধা জেলার সর্বত্র কাজ করছে কয়েকটি টিম। রাতদিন ব্যস্ত সময় কাটছেন দুর্গোৎসব আয়োজকগনসহ  প্রতিমা শিল্পীরা ।

গাইবান্ধা জেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রনজিৎ বকসী সুর্য্য বলেন, মণ্ডপে মণ্ডপে আলোকসজ্জা থাকলেও ঢাক বাজবে না এই মহামারির দুর্দিনে।

মূর্তির কারিগর যতিন দেওয়ান বলেন, প্রতিমা তৈরি আমাদের বাপদাদার পেশা। যেখান থেকেই আমাদের ডাক পড়ুক, আমরা আমাদের চাহিদা অনুযায়ী সেখানে যাই এবং একটি টিম নিয়ে রাতদিন কাজ করি।

কালীবাড়ি মন্দিরের পুজারি শ্রী মধুসুদন চক্রবতী বলেন, করোনায় সারা বিশ্বের মানুষের মনে কোন আনন্দ নেই। মানুষ যাতে ভালোভাবে শান্তিতে দিন কাটাতে পারে সেজন্য মন্দিরের বাইরে এবারও আমরা কোন আলোকসজ্জা করবো না।

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন জানান, গাইবান্ধার মানুষ শান্তিপ্রিয়। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের এই উৎসবে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষও এই আনন্দ থেকে বাদ যায়না। আনন্দঘন পরিবেশে দুর্গোৎসব পালনের জন্য প্রশাসনের পক্ষে থেকে সকল প্রকার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: